বর্ধমানে সুইমিং পুলের জলে সাঁতার শিখতে এসে মৃত্যু ১৯ বছরের যুবকের,মৃতের আত্মীয়ের অভিযোগ ডুবিয়ে মেরে ফেলা হয়েছে তাকে

অবতক খবর,১১ মেঃ বর্ধমান শহরের কল্পতরু সুইমিং পুলে বৃহস্পতিবার বাইক নিয়ে এসে সাঁতার শিখতে গিয়ে জলে অসুস্থ হয়ে জলের মধ্যে তলিয়ে গিয়ে মৃত্যু হয় ১৯বছরের যুবক কাইপ মন্ডল বাড়ি বর্ধমান থানার অন্তর্গত কেষ্টপুর এলাকায়।প্রতিদিনকার মতো এদিনও কাইফ কল্পতরু চিল্ড্রেন কালচারাল সেন্টারের সুইমিংপুলে প্র্যাকটিস করতে আসে সেই সময় হঠাৎই অসুস্থ হয় জলের মধ্যেই তলিয়ে যাওয়ায়, তরিঘরি তাকে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসা হলে চিকিৎসকেরা মৃত বলে ঘোষনা করে।ঘটনাস্থলে যায় বর্ধমান থানার পুলিশ। তবে এই ঘটনায় মৃতের এক আত্মীয় সেখ জাকির হোসেন বর্ধমান থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন‌।মৃতের আত্মীয়ের অভিযোগ আমাদের ছেলে মারা যায়নি ওরা আমাদের ছেলেকে জলে ডুবিয়ে মেরে দিয়েছে ।

এর আগেও এখানে অনেক ছেলে মারা গেছে এভাবে।আমি কল্পতরু সুইমিং পুলের যে কর্মকর্তারা এবং মালিক রয়েছে তাদের তদন্ত করে কঠোরতম শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তিনি। কল্পতরু সুইমিং পুলের জয়েন্ট সেক্রেটারি সৌগত হালদার জানান প্রতিদিনি আমাদের সকালে তিনটে ব্যাচ আছে ।সকালে ৭টা ১৫ র ব্যাচে এই কাইপ মন্ডল নামে ছেলেটি সাঁতার শিখতে আসে সুইমিং পুলে।ও একমাস যাবদ ভর্তি হয়েছে এখন আমাদের সুইমিং পুলে দু তিন বার দূর্ঘটনা ঘটার পর সারে তিন থেকে ৪ফুট মাত্র জল রেখেছি ।তবে জলে ডুবে মৃত্যু এখন আমাদের সুইমিং পুলে কোনো চান্স নেই । হঠাৎ করেই মুখ থেকে মনে হয় কিছু বেরোচ্ছিল আমি ছিলাম না সঙ্গে সঙ্গে আমাদের স্টাফরা নিয়ে পেটে চাপ দিলো জল কিছু বেরোয়নি।

সঙ্গে হসপিটালে নিয়ে যাওয়ার পর ডাক্তার মৃত বলে ঘোষনা করে ।আমি জিঞ্জেস করলাম ডাক্তারকে কি করে মারা গেছে বিকৃতির বললো জল তো কিছু বেরোয়নি পেট থেকে দেখুন মনে হয় গ্যাসফর্ম করেছে রাত্রিবেলা কিছু খাওয়া দাওয়ার জন্য অথবা হার্ট অ্যাটাক হতে পারে।