পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের প্রাক্তন আপ্ত সহায়ক সুকান্ত আচার্য বাড়িতে ফের সিবিআই হানা,ম্যারাথন জেরা চলে ছয় ঘন্টা

অবতক খবর,৪ মে,নববারাকপুরঃ পার্থ চট্টোপাধ্যায় এর প্রাক্তন আপ্তসহায়ক সুকান্ত আচার্যের নিউব্যারাকপুরের বাড়িতে ফের সিবিআই হানা বৃহস্পতিবার সকালে ।এই নিয়ে তৃতীয়বার সিবিআই এলো সুকান্ত বাবুর বাড়িতে।এর আগে ২০২২ সালে পার্থ চট্টোপাধ্যায় গ্রেপ্তারের পরপর এসেছিলো সিবিআই এই বাড়িতে,সেই সময় পরপর দুবার এসেছিলো।নিজাম প্যালেসে ইডি হেফাজতে একাধিকবার জেরা করা হয়েছিল এসএসসি উপদেষ্টা কমিটির অন্যতম সদস্য সুকান্ত আচার্য কে।

এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতি কান্ড আবারও সিবিআই আসে এই বাড়িতে দীর্ঘদিন পর। বৃহস্পতিবার সকাল ৯ টা নাগাদ সিবিআই এর পাঁচ প্রতিনিধি দল এবং কেন্দ্রীয় বাহিনী। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের প্রাক্তন আপ্ত সহায়ক সুকান্ত আচার্যের বাড়িতে সিবিআই হানা। নিয়োগ দুর্নীতি কাণ্ডে এর আগেও এই সুকান্ত আচার্যের বাড়িতে হানা দিয়েছিল সিবিআর আধিকারিকেরা । পরবর্তী সময় সিজিও কমপ্লেক্সে ডেকে পাঠানো হয় এই সুকান্ত আচার্যকে ।

বৃহস্পতিবার সকালে সিবিআই এর পাঁচ আধিকারিক সহ কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে ফের সিবিআই হানা। আয় ব্যয়ের হিসাব সম্পত্তির পরিমাণ সহ নিয়োগের সুপারিশ নিয়ে ম্যারাথন জেরা চলে বাড়িতে। জানা যাচ্ছে এইদিন বাড়িতে নেই সুকান্ত আচার্য,সিবিআই প্রতিনিধিরা বাড়ির ভিতরে পরিবারের লোকজনের সাথে কথা বলছে,প্রায় দু’ঘন্টা ধরে চলছে এই জিজ্ঞাসাবাদ। সিবিআই জেরা চলাকালিন নিউব্যারাকপুরে সুকান্ত বাবুর বাড়ি থেলে তার বাবা বাইরে বের হন।সেই সময় বাবা জনার্দন আচার্য কে কিছু প্রশ্ন করা হলে সংবাদমাধ্যম কে রীতিমতো ধাক্কা মারে, এমনকি বুম কেরে ফেলে দেওয়ার চেষ্টা করে।

তিনি প্রথমে জানান সুকান্ত আচার্য দিল্লি তে আছে,পরে আবার বলেছে সবাই বাড়িতে রয়েছে।সিবিআই এর জন্য রান্না করা হচ্ছে,যা রান্না হচ্ছে তা আপনাদের বলবো কেন?এই বলেই রেখে গিয়ে বুম কারাকারি করতে থাকে সংবাদমাধ্যমের বুমে ধাক্কা,এবং যথেষ্ট খারাপ ব্যবহার করেন জনার্দন বাবু। প্রায় ছয় ঘন্টা জেরার পর নিউব্যারাকপুরে দক্ষিণ মাসুন্দা জগদীশ বসু রোডে সুকান্ত আচার্যের বাড়ি থেকে বেড়িয়ে গেলো সিবিআই প্রতিনিধি দল দুপুর ২:৩৪ মিনিট ।

তারা এই দিন একজন সাক্ষী কে নিয়েই এসেছিলো পার্থ চট্টোপাধ্যায় এর প্রাক্তন আপ্ত সহায়ক সুকান্ত আচার্য এর বাড়িতে।অবশেষে দীর্ঘক্ষণ তল্লাশি জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সাক্ষী কে নিয়ে বেড়িয়ে যান।সংবাদমাধ্যমের সামনে কিছু বলতে রাজি নয় সিবিআই আধিকারিকরা। সংবাদ মাধ্যম পরিবারের সাথে কথা বলতে গেলে তারাও বলেন সংবাদমাধ্যমকে কিছু বলবে না,সুকান্ত আচার্য বাড়িতেই আছে,তারা সিবিআই তল্লাশির বিষয়ে কিছু বলবেন না।এমনটাই জানিয়ে দরজা মুখের ওপর বন্ধ করে দেন।