পঞ্চায়েত ভোটের প্রাক্কালে এলাকাবাসীকে উপহার মন্ত্রীর

অবতক খবর,১৪ মে,মালদাঃ পঞ্চায়েত ভোটের প্রাক্কালে এলাকাবাসীকে উপহার মন্ত্রীর।কয়েক দিনের ব্যবধানে একের পর এক এলাকায় রাস্তার শিল্যানাস।কয়েক কোটি টাকা ব্যয়ে বিভিন্ন এলাকায় শুরু হচ্ছে রাস্তা সংস্কারের কাজ।মানুষের দাবি মেনে কাজ করছেন মন্ত্রী।বিরোধীদের অপপ্রচার ধোপে টিকবে না। উন্নয়নের নিরিখে মানুষ তৃণমূলের পাশে থাকবে দাবি শাসক দলের। মালদা জেলার হরিশ্চন্দ্রপুর ১ নম্বর ব্লকের অন্তর্গত হরিশ্চন্দ্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের হরিশ্চন্দ্রপুর সদর এলাকায় রামবিধু মোড় থেকে হাসপাতাল মোড় পর্যন্ত রাস্তার অবস্থা দীর্ঘদিন ধরে বেহাল ছিল।বারবার রাস্তা সংস্কারের দাবি জানিয়ে ছিল এলাকাবাসী। বিজেপি অভিযোগ তুলেছিল হরিশ্চন্দ্রপুর সদরে বিজেপি ভোট পাওয়ার কারণে তৃণমূল কাজ করে না এই এলাকায়। অবশেষে হরিশ্চন্দ্রপুরের বিধায়ক তথা রাজ্যের প্রতিমন্ত্রী তাজমুল হোসেনের উদ্যোগে রামবিধু মোড় থেকে হাসপাতাল মোড় পর্যন্ত ৫০০ মিটার রাস্তা সংস্কারের কাজ শুরু হল সোমবার।পূর্তদপ্তরের ৭৬ লক্ষ টাকা ব্যয়ে শুরু হল এই কাজ।শিল্যানাস অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হরিশ্চন্দ্রপুরের বিধায়ক তথা রাজ্যের প্রতিমন্ত্রী তাজমুল হোসেন, হরিশ্চন্দ্রপুর অঞ্চল তৃনমূল কংগ্রেসের সভাপতি সঞ্জীব গুপ্তা,তৃণমূল যুব সভাপতি জিয়াউর রহমান সহ অন্যান্য নেতৃত্ব বৃন্দ। ফিতা কেটে রাস্তার উদ্বোধন করেন মন্ত্রী।শিল্যানাস অনুষ্ঠানের জন্য বাধা হয়েছিল মঞ্চ। জানা গেছে শুধু হরিশ্চন্দ্রপুর সদর এলাকায় নয় হরিশ্চন্দ্রপুর বিধানসভার অন্তর্গত দৌলতপুর, বাঙালিপাড়া সহ একাধিক এলাকায় শুরু হয়েছে বেহাল রাস্তা সংস্কারের কাজ। রাস্তার কাজ শুরু হওয়াই স্বভাবত খুশি হরিশ্চন্দ্রপুরবাসী।

এই প্রসঙ্গে মন্ত্রী তাজমুল হোসেন বলেন, আমার বিধানসভার অন্তর্গত বিভিন্ন এলাকায় রাস্তা সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে। কয়েকদিন ধরে আমি সেই সব রাস্তার শিল্যানাস করেছি। পরবর্তীতে আরো কাজ হবে। আমরা মমতা ব্যানার্জির উন্নয়ন মানুষের কাছে পৌছে দিতে বদ্ধপরিকর।

প্রসঙ্গত এক দিকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে দুর্নীতি সাথে আক্রমণের ঝাঁজ বাড়াচ্ছে বিরোধীরা।মাথাচাড়া দিচ্ছে তৃণমূলের গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব। সেই সময় মূলত উন্নয়নকে সামনে রেখে পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রাক্কালে মানুষের সামনে বার্তা দিতে চাইছে শাসক দল। জানা গেছে গত এক বছরে বিধায়কের উদ্যোগে সমগ্র বিধানসভা এলাকায় প্রায় ১০০ কোটি টাকার রাস্তার কাজ শুরু হয়েছে। পরবর্তীতে আরো হবে দাবি তৃণমূলের। আর এই উন্নয়নের নিরিখেই মানুষ ভোট দেবে শাসকদলকে।