নিজের জমিতেই পরবাসী হয়ে যাচ্ছেন মালদার ইংরেজবাজার থানার কোতুয়ালী গ্রাম পঞ্চায়েতের বেগমনগর গ্রামের বাসিন্দারা

অবতক খবর,২৮ জানুয়ারি,মালদা:- নিজের জমিতেই পরবাসী হয়ে যাচ্ছেন মালদার ইংরেজবাজার থানার কোতুয়ালী গ্রাম পঞ্চায়েতের বেগমনগর গ্রামের বাসিন্দারা। সৌজন্যে এক বেসরকারী স্কুল কর্তৃপক্ষের দাদাগিরি। জোরপূর্বক হত দরিদ্র গ্রামবাসী জমি দখল করে নিচ্ছেন স্কুল কর্তৃপক্ষ। জমি ফিরে পেতে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ থেকে জেলা প্রশাসনিক কর্তাদের কাছে অভিযোগ করেছেন বাসিন্দারা।

তবুও স্কুল কর্তৃপক্ষের দখল থেকে জমি উদ্ধার করতে অসমর্থ হয়ে মুখ্যমন্ত্রী দরবারে দারস্থ হয়েছেন গ্রামবাসীরা।আর তাতেই বেজায় চটেছেন স্কুল কর্তৃপক্ষ। হতদরিদ্র প্রতিবাদী গ্রামবাসীদের চোখ রাঙানি,প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি সহ মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার শাসানি দিচ্ছেন স্কুল কর্তৃপক্ষ অভিযোগ এমনই। পুরো বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আসলেও কোন এক অজ্ঞাতকারণে নির্বাক ও নীরব দর্শকের ভুমিকায় জেলার পুলিশকর্তা থেকে ভুমি ও ভুমিসংস্কার দপ্তরের আধিকারিকেরা। বিষয়টি নিয়ে কোন প্রতিক্রিয়া দিতে নারাজ স্কুল কর্তৃপক্ষ। বারংবার স্কুল কর্তৃপক্ষের সাথে দেখা করার চেষ্টা করেও সংবাদ মাধ্যমের সাথে কথা বলতে নারাজ স্কুল কর্তৃপক্ষ। তবে স্কুল কর্তৃপক্ষের এহেন কান্ডে কোতুয়ালী গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান সঞ্জীব ঘোষও ক্ষুদ্ধ।তিনিও জানান স্কুল কর্তৃপক্ষ তথা স্কুলের কর্ণধার গোপাল সরকার বেআইনীভাবে এলাকার বাসিন্দাদের জমি দখল করছেন।এলাকাবাসীর অভিযোগ পেয়ে স্কুলের কর্ণধার গোপাল সরকারকে সতর্ক করা হয়। কিন্তু পঞ্চায়েতের কথার কোন গুরুত্ব দেন নি তিনি। ফলে বিষয়টি উদ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

বেগমনগর গ্রামের বাসিন্দা অঞ্জু সাহা ,বিনয় মন্ডলরা জানান জমির দলিলে তাদের নামে। কিন্তু স্কুলের কর্ণধার গোপাল সরকার তাদের জমিতে বাউন্ডারি দিয়ে ঘিরে নিচ্ছেন। বাধা দিতে গেলে মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছেন। শুধু তাই নয় প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছেন। ফলে আতঙ্কে রয়েছেন তারা।

দক্ষিণ মালদার বিজেপির সাংগঠনিক সাধারণ সম্পাদক অম্লান ভাদুরী বলেন এইভাবে জবর দখল করা যায় না। স্কুলের আড়ালে জমি মাফিয়ার কারবার রোখার দায়িত্ব প্রশাসনের। জেলাশাসক,ভুমি ও ভুমি সংস্কার দপ্তরের আধিকারিকেরা বিষয়টি নজর দিয়ে গুরুত্ব সহকারে দেখা উচিত।