আদালতে যাওয়ার মুখে সাংবাদিকদের ক্যামেরার সামনে চাঞ্চল্যকর তথ্য জানালো ধৃত দেব বল্লভ

অবতক খবর,মালদা,২৭ এপ্রিলঃ মালদার স্কুলে বন্দুকবাজের গ্রেপ্তারের ঘটনায় আদালতে যাওয়ার মুখে সাংবাদিকদের ক্যামেরার সামনে চাঞ্চল্যকর তথ্য জানালো ধৃত দেব বল্লভ । তার বক্তব্য, মোটা টাকার বিনিময়ে বিহার থেকে বন্দুক কিনেছিল সে। বিহারের কিছু মাফিয়াদের সঙ্গে তার যোগাযোগ রয়েছে।

তারপরই পরিকল্পনা করেই স্কুল কাণ্ডের ঘটনাটি সে ঘটিয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে ধৃত দেব বল্লভকে মালদা আদালতে পেশ করেছে পুলিশ। ধৃত দেভ বল্লভকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মালদা আদালতের কাছে ১৪ দিনের পুলিশি হেফাজতের আবেদন জানিয়েছে তদন্তকারী পুলিশকর্তারা।

এদিন আদালতের যাওয়ার পথে বেশ হাসিমুখেই পুলিশে ঘেরাবন্দীর মধ্যে যেতে দেখা গিয়েছে বন্দুকবাজ দেব বল্লভকে। সাংবাদিকদের ক্যামেরার সামনে কথা বলার সময় মনের মধ্যে তার কোন যে অনুতাপ ছিল না, তার হাসিমুখের চেহারাতেই পরিষ্কার ফুটে উঠে এসেছে।

উল্লেখ্য, পুরাতন মালদা থানার মুচিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের চন্দ্রমোহন হাইস্কুলে বুধবার দুপুরে বন্দুক, পেট্রোল বোমা এবং ভোজালি নিয়ে সপ্তম শ্রেণীর ক্লাস রুমে গিয়ে তাণ্ডব চালাই অভিযুক্ত দেব বল্লভ। এই ঘটনার পর পুলিশি তৎপরতায় অভিযুক্ত ধরা পড়ে। কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে স্কুলের নিরাপত্তা নিয়ে। কিভাবে একজন অচেনা মানুষ স্কুলের ক্লাসরুমে সশস্ত্র এবং নিজেকে মানব বোমা বলে ঢুকে পড়েছিল, তা নিয়েও বিস্তর প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

এদিন পুলিশের ঘেরাটোপে আদালতে যাওয়ার মুখে ধৃত দেব বল্লভ চিৎকার করে বলে, আমার কাছে যে বন্ধুক আছে সেটা পুলিশ জানতো। এই কথা বলতে বলতেই ধৃতকে ধাক্কা দিয়ে আদালতের জিআরও অফিসে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়।

পুরাতন মালদার চন্দ্রমোহন হাইস্কুলের বন্দুকবাজ তান্ডবের ঘটনায় এখনো সংশ্লিষ্ট স্কুলে আতঙ্কের ছাপ রয়েছে। অন্যান্য দিনের থেকে এদিন পড়ুয়াদের উপস্থিতির হার ছিল অনেকটাই কম।