সুকান্ত মজুমদার হাইকোর্ট থেকে কি বললেন? দেখুন….

অবতক খবর,১৮ ডিসেম্বর: কেন্দ্রীয় সরকারের প্রকল্প গত বাইশে আগস্ট কমনসার্ভিস প্রকল্প সেটা রাজ্য সরকার উদ্দেশ্যপ্রণোদিত করে বন্ধ করে দিয়েছে শুধুমাত্র ভোট পলিটিক্সের জন্য, সেইমর্মে হাইকোর্টে একটা পিআইএল করা হয়েছিল, মহামান্য হাইকোর্টে সেই কথাগুলো তুলে ধরলেন, রাজ্য সরকার নাকি কেন্দ্র সরকারের এই প্রকল্প চালাতে বাধ্য হয়েছে রাজ্য সরকার দিয়েছে হাইকোর্টে সেটা সংবিধান ও যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামো বিরোধী।

কেন্দ্রীয় সরকার গ্রামের যুবক যুবতীদের আত্মনির্ভর করতে চাই। এই প্রকল্পে, এই প্রকল্প ে সিএসসিকে সেই টাকা দিতে হয় না কেন্দ্রীয় সরকার দেয়। রাজ্য সরকার যে ওই ছেলেমেয়েদের সান্মানিক দেয় এই টাকা কার টাকা, দুই টাকার জনগণের ট্যাক্সের টাকা এর জন্য এটা করছে সরকার।

সত্যটার উপর কেন্দ্রীয় প্রকল্প সিএসসির মাধ্যমে যেটা দেয়া হয় সিএসসি বন্ধ করে দেয়ার ফলে প্রচুর মানুষ বঞ্চিত হচ্ছে, ভোটের জন্য বাংলার অনেক ছেলেমেয়েকে এই প্রকল্পগুলি থেকে লাথি মেরেছে রাজ্য সরকার

৫০ শতাংশ মানুষ উর্দুতে কথা বলে কলকাতা মেয়রের বক্তের পরিপ্রেক্ষিতে বললেন সুকান্ত মজুমদার সহজে বাংলা দখল করতে দেব না

রাজ্য সরকার যে ৫ হাজার হলো গিয়ে মুখ লুকানোর চেষ্টা করছে সেই প্রেক্ষিতে বললেন যে পরিমাণ দুর্নীতি হয়েছে শাক দিয়ে মাছ ঢাকা যাবেনা, আদালতের সঙ্গে পরিষ্কার হয়ে গেছে যারা চুরি শিখে আছে বড় বড় কথাগুলো এবার জেলে যাবে।

সঠিক পথ ছেলেমেয়েদের হাইকোর্টের এই অবজারভেশনের ফলে উপকৃত হবে যারা পার্শ্বশিক্ষক, এদের যোগ্যতা অনুযায়ী এদের কর্মসংস্থান হবে।
আক্রান্তর প্রেক্ষিতে তিনি বলেন বিভিন্ন জায়গায় যেভাবে আমাদের কর্মীরা আক্রান্ত হচ্ছে। ২০২১ সালের পর থেকে শুরু হয়েছে, একটু গণতন্ত্র চলছে এদের কথা ভারতবর্ষের মানুষ শুনবে? কেউ শুনবে না