সাব জুনিয়র জাতীয় মহিলা ফুটবলে রানার্স বঙ্গকন্যা নববারাকপুরের রিমা হালদারকে সংবর্ধনা

অবতক খবর,১৭ সেপ্টেম্বর,নববারাকপুর: সাব জুনিয়র (অনূর্ধ্ব ১৪) জাতীয় মহিলা ফুটবলে রানার্স বাংলা দলের বঙ্গকন্যা নববারাকপুর নিবাসী রিমা হালদার কে রবিবার দুপুরে সংবর্ধিত করল পুরসভার ১ নং ওয়ার্ড কমিটির সদস্যরা।পাঞ্জাবের অমৃতশ্বরে গুরু নানক স্টেডিয়াম থেকে ফাইনালে খেলে বাড়ি ফিরল পুরসভার ফুটবল অ্যাকাডেমির অনুর্ধ ১৪ ফুটবলার রিমা হালদার।নববারাকপুরের গর্ব রিমা।বাংলা দলে খেলার সুযোগ পেয়ে পশ্চিমবঙ্গ রানার্স দল পায়।কলোনী গার্লস হাইস্কুলের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। মা পরিচারিকার কাজ করে বাবা পেশায় রং মিস্ত্রি। ফুটবল কে ভালোবেসে দারিদ্রতার সাথে লড়াই করে খালপাড়ে টিন টালির একচিলতে ঘরে বসবাস করে এগিয়ে চলেছে রিমা। রবিবার দুপুরে রিমার বাড়িতে গিয়ে তার এই বিরাট সফলতাকে উৎসাহিত করল পুরসভার ১ নং ওয়ার্ডের পুর প্রতিনিধি হৃষিকেশ রায়।সাথে ছিলেন ওয়ার্ড কমিটির পক্ষে নিখিল রঞ্জন বসু, প্রাক্তন পুর প্রতিনিধি পূর্ণিমা রায়, পুলক ব্যানার্জি, বিক্রম। পুর প্রতিনিধি হৃষিকেশ রায় বলেন নববারাকপুরে গর্ব রিমা হালদার।দত্তপুকুর নিবাধুই জাগ্রত সংঘে অনুশীলন করে। কলোনী গার্লস হাইস্কুলের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী সে। কৃতী পড়াশোনার পাশাপাশি সাব জুনিয়র অনুর্ধ ১৪ জাতীয় ফুটবলে বাংলা দলে পুরসভার ফুটবল অ্যাকাডেমির ফুটবলার রিমা হালদার যোগ্যতা অর্জন করে। ফাইনালে বাংলা দল রানার্স আপ হয়েছে।তার এই লড়াই সফলতাকে অভিনন্দন শুভেচ্ছা জানাই।

হতদরিদ্র পরিবারে বসবাস করে জাতীয় ফুটবল বাংলার মুখ উজ্জ্বল করেছে বঙ্গকন্যা রিমা। নববারাকপুর সহ বাংলার গর্ব রিমা।পুরসভার ১ নং ওয়ার্ডে কমিটির পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেওয়া হল। খুব শীঘ্রই নববারাকপুর পুরসভার পুরপ্রধান প্রবীর সাহা ও কলোনী উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে ও সংবর্ধিত করা হবে ।রিমার উচ্চ শিক্ষায় পড়াশোনা সহ ফুটবল প্রশিক্ষণ কোন অসুবিধায় পুরসভা সবসময় পাশে রয়েছে ।ভবিষ্যতে ও থাকবে।