অবতক খবর,২৪ ডিসেম্বর: পুরভোটে বিপুল জয়। যেদিন কলকাতা পুরসভার নয়া মেয়র-ডেপুটি মেয়র-সহ মেয়র পারিষদের নাম ঘোষণা করলেন, সেদিন নবান্ন সভাঘরে ৭৫ তম স্বাধীনতা দিবসের (75th Independence Day) প্রস্তুতি বৈঠকও সেরে নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (CM Mamata Banerjee)। ঘোষণা করলেন, তমলুকে গান্ধীজীর নামে একটি বিশ্ববিদ্যালয় করবে সরকার। ১৫ অগাস্ট থেকে ৭ দিন রাজ্য জুড়ে মণীষীদের স্মরণ করা হবে।

২৩ জানুয়ারি থেকে ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত নেতাজিকে নিয়ে অনুষ্ঠান হবে। নেতাজির জন্মদিনে পদযাত্রা ও সাইরেন বাজানো হবে। ২০২২-এ বিশ্ব সঙ্গীত সম্মেলন হবে রেড রোডে।আগামী বছর স্বাধীনতার ৭৫ বছর পূর্তি। কীভাবে উদযাপন করা হবে ১৫ অগাস্ট দিন? গতকাল, মঙ্গলবার ভার্চুয়ালি সমস্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে প্রস্তুতি বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PM Narendra Modi)। কমিটির সদস্য হিসেবে সেই বৈঠকে যোগ দিয়েছিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। কিন্তু বলার সুযোগ পাননি তিনি। শুধু শোনা ছাড়া অন্য কোনও ভূমিকা ছিল না তাঁর।

বক্তাদের তালিকায় ছিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌত, অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জগন্মোহন রেড্ডি, পঞ্জাবের অমরেন্দ্র সিংহ, লতা মঙ্গেশকর, এমনকী, গুজরাটের রাজ্যপাল-সহ আরও অনেকেই।বাংলায় বিশিষ্টজনদের নিয়ে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন কমিটি তৈরি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন সেই কমিটির সদস্যদের সঙ্গে প্রস্তুতি বৈঠক করলেন নবান্ন সভাঘরে।

বৈঠক যোগ দিয়েছিলেন রামকৃষ্ণ মিশনের দিলীপ মহারাজ, সঙ্গীতশিল্পী অজয় চক্রবর্তী, চিত্রকর যোগেন চৌধুরী, ইতিহাসবিদ সুরঞ্জন দাস-সহ অনেকেই। ছিলেন মন্ত্রী ও প্রশাসনিক আধিকারিকরাও।এদিকে আগামীকাল, শুক্রবার আবার ঋষি অরবিন্দের ১৫০ তম জন্মবাষির্কী কমিটির বৈঠক ডেকেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (PM Narendra Modi)। এই বৈঠক হবে ভার্চুয়ালি। কিন্তু সেই বৈঠকে যোগ দিচ্ছেন না কমিটি সদস্য, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।