মুরসালিমের পরিবারের লোকরা দাবি তুলেছেন অবিলম্বে রেলে তার পরিবারের কাউকে স্থায়ী কাজের ব্যবস্থা করে দিতে হবে

অবতক খবর,১ অক্টোবর,মালদা:সানু ইসলাম: গত সপ্তাহে ই কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেস কে দুর্ঘটনার হাত থেকে বাঁচিয়ে রাতারাতি খবরের শিরোনামে এসেছিল হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকার কোরিয়ালির ঝাঙরপাড়ার বাসিন্দা বছর-১৪ এর মোরসালিম । কিন্তু সপ্তাহ গড়িয়ে গেলেও মোরসালিমের জন্য এখনো পর্যন্ত উল্লেখযোগ্য কিছু করেনি রেল কর্তৃপক্ষ। বারবার দেওয়া হচ্ছে খালি সম্বর্ধনা। এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ ঘটনার পর থেকে এই নিয়ে দুবার রেল মোরসালিম এবং তার পরিবারকে খালি সম্বর্ধনায় দিয়ে গিয়েছে, তার সঙ্গে জুড়েছে মাত্র ১৫শ টাকা। রেলের এই ভূমিকায় ক্ষুব্ধ এলাকার বাসিন্দারা। মুরসালিমের পরিবারের লোকরা দাবি তুলেছেন অবিলম্বে রেলে তার পরিবারের কাউকে স্থায়ী কাজের ব্যবস্থা করে দিতে হবে। শুধু সম্বর্ধনা দিলেই হবে না। যদিও এ বিষয়ে রেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে তারা ইতিমধ্যেই মোরসালিমের পড়াশোনার দায়িত্ব নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন অবিলম্বে তাকে রেলের স্কুলে ভর্তি করা হবে। এ বিষয়ে তার বর্তমান স্কুলের সঙ্গেও কথাবাত্রা হয়েছে।। বিতরকের সূত্রপাত হয় গতকাল আবার রেলের তরফ থেকে মোরসালিমের সম্বর্ধনার ব্যবস্থা করা হয়। এলাকায় না থাকায় তার মাকে এই সম্বর্ধনা দেয় রেল। সেখানে রেলের তরফ থেকে মোরসালিমের পড়াশোনার দায়িত্ব নেওয়ার কথা জানানো হয়। এরপরই বিতর্ক শুরু হয় অভিযোগ ওঠে বারবার সংবর্ধনা দেওয়া হচ্ছে কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। মোরসালিমের মা মর্জিনা বিবি জানান শুধু সম্বর্ধনা নিয়ে কি হবে রেল যদি কিছু স্থায়ী ব্যবস্থা করে দেয় তাহলে খুব ভালো হয়। অভাবের সংসারে কিছুটা হলেও হাসি ফুটবে। আতাউর রহমান জানান ছেলেটি যে দুঃসাহসিক কাজ করে কয়েকশো যাত্রীর প্রাণ বাজিয়েছে তার জন্য রেলের গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নেওয়া উচিত ছেলেটির জন্য। মাত্র ১৫শ টাকা দিয়ে রেল আর কোন দায়িত্ব নিচ্ছে না কেন এটাই আমাদের প্রশ্ন।