অবতক খবর,২৮ ডিসেম্বর: মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার পরে তড়িঘড়ি আত্রাই নদীর মধ্যে বাঁধ নির্মাণের কাজ শুরু হয়ে গেলো। উত্তরবঙ্গ সফরের এসে রায়গঞ্জে প্রশাসনিক সভা থেকে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা প্রশাসনকে আত্রাই নদীর মধ্যে বাঁধ নির্মাণের অগ্রগতি সম্পর্কে জানতে চান । আর আজ থেকেই শুরু হয়ে গেল সেই বাঁধ নির্মাণের প্রথম ধাপ। জানাগেছে বাংলাদেশ সরকার মোহনপুর এলাকায় আত্রাই নদীর মাঝখানে একটি রাবার ড্যাম তৈরি করে। তারপর থেকেই ভারতবর্ষের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া আত্রাই নদী খরা কালে অনেকটাই শুকিয়ে যেত।

যেহেতু দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা কৃষি প্রধান জেলা তার সাথে বেশ মৎস্যজীবীরা নির্ভর করে আছে এই নদীর উপর নদী শুকিয়ে যাওয়ার ফলে সমস্যায় পড়তে হতো তাদের। এই দীর্ঘ সমস্যা সমাধানের পথ দেখিয়ে যান মুখ্যমন্ত্রী তাই তড়িঘড়ি করে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বালুঘাট শহরের চকভবানী এলাকায় আত্রাই নদীর মধ্যে 2 মিটার উচ্চতায় একটি কংক্রিটের বাঁধ নির্মাণ করা কাজ শুরু হয়েছে।

শেষ দপ্তরের আধিকারিক স্বপন বিশ্বাস জানিয়েছেন এই বাঁধ নির্মাণ সম্পন্ন হয়ে গেলে বালুরঘাট থেকে 10 কিলোমিটার পর্যন্ত নদীর জল ধরে রাখা সম্ভব, যার ফলে মৎস্যজীবী থেকে কৃষক উভয়ই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবে। কিন্তু সাধারণ মৎস্যজীবীদের একাংশের অভিযোগ খরার দিনগুলোতে আত্রাই নদীর জল অনেকটাই শুকিয়ে যায় আর বাঁধ নির্মাণ করলে বাঁধের পরে আত্রাই তে জল পাওয়া যাবেনা তাই অনেকটাই অসুবিধায় পড়তে পারে মৎস্যজীবীরা। যদিও এ ব্যাপারে সেচ দপ্তর আধিকারিক এর বক্তব্য নদী ভরে যাওয়ার বর্ধিত জল নদীগর্ভে আবার গিয়ে পড়বে তাই নদী পুরোপুরি ভাবে শুকিয়ে যাবেনা।