মালদা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের বহির্বিভাগে চিকিৎসা করাতে এসে এক যুবককে বাথরুমে আটক রাখার অভিযোগে ব্যপক চাঞ্চল্য

অবতক খবর,১৭ নভেম্বর,মালদা:- মালদা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের বহির্বিভাগে চিকিৎসা করাতে এসে এক যুবককে বাথরুমে আটক রাখার অভিযোগে ব্যপক চাঞ্চল্য মেডিক্যাল চত্বর জুড়ে। শুক্রবার সকাল ১০ টা নাগাদ এ ঘটনাকে ঘিরে রীতিমতো শোরগোল হাসপাতালের বহির্বিভাগে।

ঘটনাক্রমে জানা গেছে, মালদহের বামনগোলা ব্লক এলাকার বাসিন্দা সুব্রত হাওলাদার (২১), নিজস্ব চিকিৎসার জন্য হাসপাতালের বহির্বিভাগের ৬ তলায় চিকিৎসা করাতে আসে। তবে চিকিৎসা করানোর আগে সে বাথরুমে গেলে কেউ বা কারা বাইরে থেকে বাথরুমের দরজা বন্ধ করে দেয় বলে অভিযোগ। এরপরে ওই যুবক আতঙ্কগ্রস্ত হওয়ায় চিৎকার চেঁচামেচি করলেও কেউ ছুটে না আসায় অবশেষে বাথরুমে থাকা কাঁচের জানালা ভেঙে বাইরে ফেলে।

এরপরেই হাসপাতালে থাকা অন্যান্যদের নজরে আসলে তড়িঘড়ি করে ওই যুবককে বাথরুমের দরজা খুলে বাইরে বের করা হয়।

এদিকে বাইরে বেরিয়ে আসতেই ওই যুবককে সংবাদমাধ্যমে ধরা হলে সে জানায়, তার বাড়ি মালদা জেলার বামনগোলা এলাকায়। বিগত কয়েকদিন আগে বিহারের পাটনায় গেছিল সেখান থেকে ফেরার পথে মালদা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের বহির্বিভাগে চিকিৎসা করাতে আছে আর এরপরেই ঘটে তার সাথে এই ঘটনা। জানা গেছে, সে পাকুয়া ডিগ্রী কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র। মাঝে মাঝেই জ্ঞান হারিয়ে ফেলাই এই সমস্যা নিয়ে চিকিৎসা করাতে আসে শুক্রবার সকালে।

তবে ওই যুবকের সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনায় কে বা কারা করে থাকতে পারে তার তদন্তে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও পুলিশ।