মালদা কান্ড নিয়ে রাজ্য প্রশাসনকে নিশানায় নিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ সুকান্ত মজুমদার

অবতক খবর,৪ ফেব্রুয়ারি,মালদা:- মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি মালদায় থাকাকালীন নাবালিকা ছাত্রী নৃশংসভাবে খুন হয়ে গেল, তাহলেই বোঝা যাচ্ছে রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা কোথায়? রবিবার সকালে মৃত ১১ বছর বয়সী পঞ্চম শ্রেণীর নাবালিকা ছাত্রীর পরিবারের সঙ্গে দেখা করার পর রাজ্য প্রশাসনকে এই ভাবেই নিশানায় নিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ সুকান্ত মজুমদার। এদিন মৃত নাবালিকা পরিবারের সঙ্গে দেখা করার পর ইংরেজবাজার শহরের পুড়াটুলি বাঁধরোড এলাকার বিজেপি কার্যালয়ে সাংবাদিক বৈঠক করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। তিনি বলেন, মালদায় ড্রাগসের স্বর্গরাজ্য হয়ে উঠেছে। যে ছেলেটি ওই নাবালিকা ছাত্রীকে খুন করেছে, সেই শ্রীকান্ত কেশরী মাদকাসক্ত ছিল । আমরা মৃত ছাত্রীর বাবার সঙ্গেও কথা বলে তা জাতে পেরেছি। এই ধরনের ঘটনা কোনোভাবেই মেনে মেনে নেওয়া যায় না।

বিজেপি রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার আর ষও বলেন, পুলিশ ও প্রশাসন যে ব্যর্থ তার প্রমাণ আজও সবাই দেখতে পাচ্ছে । কারণ, ইংরেজবাজারের আম মার্কেটের যেখানে ওই ছাত্রী দেহ উদ্ধার হয়েছিল , সেখানে আজও চশমা পড়ে রয়েছে। দেহ উদ্ধারের জায়গাটা কোন রকম ভাবে ঘেরা হয় নি। ফলে সেখানে প্রমাণ কি থাকবে । আমাদের ধারণা একা ওই অভিযুক্তের পক্ষে এইভাবে মুন্ডু কেটে খুন করাটা অসম্ভব ব্যাপার । পুলিশকে দেখতে হবে এর পিছনে আরও কেউ জড়িত রয়েছে কিনা। কিন্তু পুলিশ দায়সাড়া ভাবে তদন্ত করছে।

এদিন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার দলের জেলা নেতৃত্বের সঙ্গে ইংরেজবাজার শহরের উত্তর বালুচর এলাকায় মৃত পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্রী সৃষ্টি কেশরীর বাড়িতে যান এবং পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন। ওই ছাত্রীর বাবা মনোজ কেশরীর সঙ্গেও কথা বলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। প্রায় এক ঘন্টা ধরে পরিবারের সঙ্গে কথা বলে তাদেরকে সমবেদনা জানান। এরপরই ইংরেজবাজার শহরের বিজেপির জেলা কার্যালয়ে সাংবাদিক বৈঠক করা হয় ।