মালদার বিখ্যাত হিমসাগর,ফজলি এবং লক্ষণভোগ আমের জিআই তকমা পাওয়ার কিছু চাষীদের হাতে শংসাপত্র তুলে দিল প্রশাসন

অবতক খবর,৫ সেপ্টেম্বর,অভিষেক দাস,মালদা:- মালদার বিখ্যাত হিমসাগর,ফজলি এবং লক্ষণভোগ আমের জিআই তকমা পাওয়ার কিছু চাষীদের হাতে শংসাপত্র তুলে দিল প্রশাসন। এবার থেকে আর মালদার এই সুস্বাদু তিন প্রজাতি আমের গুণগত মান রপ্তানিকারক থেকে ক্রেতাদের , বিক্রেতাদের যাচাই করতে হবে না। সরকারি স্বীকৃতিপ্রাপ্ত জিআই তকমা থাকবে এই প্রজাতির আমে। সরকারের জিআই স্বীকৃতি পাওয়ার পর এখন রপ্তানিকারক থেকে ব্যবসায়ী ও চাষীদের মধ্যে হাসি ফুটেছে।

মঙ্গলবার দুপুরে মালদা টাউন হলে এই তিন প্রজাতি আমের ক্ষেত্রে জিআই শংসাপত্র বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়‌। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছিলেন রাজ্যের বিজ্ঞান প্রযুক্তি ও জৈব প্রযুক্তি দপ্তরের ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী উজ্জ্বল বিশ্বাস, সেচ দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন, বস্ত্র দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী তাজমুল হোসেন। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন মালদা জেলা পরিষদের সভাধিপতি লিপিকা বর্মন ঘোষ, জেলাশাসক নীতিন সিংহানিয়া, উদ্যানপালন দপ্তরের জেলা আধিকারিক সামন্ত লায়েক সহ বিশিষ্ট জনেরা।
বলাবাহুল্য , কয়েক মাস আগেই মালদার সুস্বাদু হিমসাগর , ফজলি এবং লক্ষণভোগ আমের জিআই তকমার করা হয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে। এরপরই এদিন জিআই স্বীকৃতি দেওয়া শংসাপত্র কিছু চাষীদের হাতে তুলে দেওয়ার ব্যবস্থা করে মন্ত্রী এবং প্রশাসনের কর্তারা। সম্পূর্ণ জৈব পদ্ধতিতে এইসব প্রজাতির আম চাষ করে সুনাম অর্জন করেছেন মালদার চাষীরা। সে ক্ষেত্রে দেশ-বিদেশে এই আমের গুণগত মান যাচাইয়ের ক্ষেত্রে নতুন করে আর কোন সমীকরণ থাকলো না। জিআই তকমা দেখলেই আমের সম্পূর্ণ গুণগত মানের বিষয়টি নিয়ে আর কোনো ক্রেতা, রপ্তানিকারক অথবা ব্যবসায়ীদের মধ্যে সন্দেহ থাকবে না।