ভোর হতেই দাদুর খোঁজে হাজির হয়ে যান সকলে,কিন্তু কেন?

অবতক খবর,১৭ জানুয়ারি,মালদা:-মালদা হোক কিংবা দুই দিনাজপুর। দাদু নামে পরিচিত সকলের কাছে। ভোর হতেই দাদুর খোঁজে হাজির হয়ে যান সকলে। কিন্তু কেন।

মাত্র দুই টাকায় মিলছে দাঁত পরিষ্কার করার ব্রাশ। ভোর থেকে শুরু হয় বিক্রি। ব্যাপক চাহিদা মাত্র দুই টাকার ব্রাশের। সাধারণ মানুষ লম্বা লাইন দিয়ে দাঁড়িয়ে কিনছেন এই ব্রাশ। আসলে এই দুই টাকার ব্রাশ হচ্ছে নিমগাছের ডাল। গ্রামে বহু মানুষ এখনো কচি নিম ডাল দিয়ে দাঁত পরিষ্কার করেন। কিন্তু আধুনিক এই যুগে শহরে তেমন আর পাওয়া যায় না নিমডাল। তবে মালদহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে নিয়মিত এই দাঁত মাজন পাওয়া যায়। গত চল্লিশ বছর ধরে নিয়মিত মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে নিমডাল বিক্রি করে আসছেন বছর সত্তরের বৃদ্ধ শুকলাল সরকার। মালদহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রচুর সাধারণ মানুষ রাত্রি যাপন করেন। সকালবেলা ঘুম থেকে উঠে পেস্ট বা মাজনের প্রয়োজন হয়।

মালদা মেডিকেল কলেজ চত্বরে ভোর থেকেই শুকলাল বাবু বিক্রি শুরু করেন নিম ডাল। মাত্র দুই টাকা দাম নেওয়াই অধিকাংশ মানুষ এই ডাল কিনেই দাঁত পরিষ্কার করেন। নিম ডালে দাঁত মাজার অনেক উপকারিতাও আছে। তাই সাধারণ মানুষ বিনা দ্বিধায় এই মাজন কিনে নেন। মালদা এর বিশিষ্ট দন্ত চিকিৎসক এ কে সাহা বলেন, নিমের ডাল দিয়ে দাঁত পরিষ্কার করা ভাল। অনেক উপকারিতা রয়েছে সেগুলোর মধ্যে অন্যতম দাঁতের মাড়ি ঠিক থাকে। নিমের ডাল থেকে এক ধরনের রস বেরাই সেই রস মারীকে সুস্থ স্বাভাবিক রাখে।

এছাড়াও যদি কারো মুখে দুর্গন্ধ বেরোয় নিম ডালে দাঁত পরিষ্কার করলে দুর্গন্ধ অনেকটাই চলে যায়। তবে এনিমের ডাল দিয়ে নিয়মিত দাঁত মাজলে অনেক ক্ষতিকর প্রভাবও পড়তে পারে মানব জীবনে। সেগুলির মধ্যে অন্যতম যদি কেউ নিয়মিত নিমের ডাল দিয়ে দাঁত মাজেন তবে শুক্রানুর সংখ্যা কমে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। গর্ভবতী মহিলাদের জন্য নিমের ডালের দাঁতন ক্ষতিকর।

শিশুদের নিমের ডাল দিয়ে দাঁত পরিষ্কার করা একেবারেই উচিত নয়। তবে চিকিৎসকদের মতে, দাঁত ভালোভাবে পরিষ্কার করার জন্য ব্রাশ সবচেয়ে উপকারী। কারণ এই ব্রাশগুলি দাঁত পরিষ্কার করার জন্যই তৈরি করা হয় মুখের বিভিন্ন প্রান্তে অয়ানাসে প্রবেশ করানো যায়।