অবতক খবর,২৪ ডিসেম্বর: পোস্ত বাটা (Poppy Seed), বড়া, আলু পোস্ত খেয়ে যাঁরা তৃপ্তির ঢেকুর তুলতেন, তাঁদের জন্য মন খারাপের খবর। পোস্তায় ফের ভেজাল পোস্ত! আসল পোস্তর সঙ্গে মেশানো হচ্ছিল রামদানা অর্থাৎ ভুট্টার গুঁড়ো!  তারপর তাকে প্যাকেটে করে পাঠানো হচ্ছিল বাজারে।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে, বৃহস্পতিবার বড়বাজার স্টেশন লাগোয়া এই গোডাউনে অভিযান চালায়, কলকাতা পুলিশের (Kolkata Police) এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ (EB)। আটক করা হয় এক ব্যবসায়ীকে। ইবি সূত্রে খবর, উদ্ধার হয়েছে প্রচুর ভেজাল পোস্ত। পরীক্ষার জন্য নমুনা পাঠানো হয়েছে ল্যাবে। এই চক্রে আর কেউ জড়িত কিনা ধৃতকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানার চেষ্টা চলছে। এর আগেও বেশ কয়েকবার পোস্তায় হদিশ মিলেছে ভেজাল পোস্ত কারবারের। ফের সেই পোস্তাতেই ধরা পড়ল ভেজাল পোস্ত কারবার।  কলকাতা: পোস্ত বাটা (Poppy Seed), বড়া, আলু পোস্ত খেয়ে যাঁরা তৃপ্তির ঢেকুর তুলতেন, তাঁদের জন্য মন খারাপের খবর। পোস্তায় ফের ভেজাল পোস্ত! আসল পোস্তর সঙ্গে মেশানো হচ্ছিল রামদানা অর্থাৎ ভুট্টার গুঁড়ো!  তারপর তাকে প্যাকেটে করে পাঠানো হচ্ছিল বাজারে।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে, বৃহস্পতিবার বড়বাজার স্টেশন লাগোয়া এই গোডাউনে অভিযান চালায়, কলকাতা পুলিশের (Kolkata Police) এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ (EB)। আটক করা হয় এক ব্যবসায়ীকে। ইবি সূত্রে খবর, উদ্ধার হয়েছে প্রচুর ভেজাল পোস্ত। পরীক্ষার জন্য নমুনা পাঠানো হয়েছে ল্যাবে। এই চক্রে আর কেউ জড়িত কিনা ধৃতকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানার চেষ্টা চলছে। এর আগেও বেশ কয়েকবার পোস্তায় হদিশ মিলেছে ভেজাল পোস্ত কারবারের। ফের সেই পোস্তাতেই ধরা পড়ল ভেজাল পোস্ত কারবার। এই বছর জুলাই মাসে, পোস্তায় ভেজাল পোস্তর কারবার ধরা পড়ে। সাদা পোশাকে অভিযান চালিয়ে চক্রীদের গ্রেফতার করে কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ। সেখানেও বেশ কয়েকমাস ধরেই চলছিল জাল পোস্তর কারবার। পোস্তার মহর্ষি দেবেন্দ্র রোডে বেআইনিভাবে পোস্ত তৈরির কারবার চলছিল। সেখানেও পোস্তর সঙ্গে মেশানো হচ্ছিল ভুট্টার দানা। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে সেখানে অভিযান চালায় কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ। হাতেনাতে ধরে ফেলে একজনকে। উদ্ধার হয়েছে ভুট্টার দানা, গ্রাইন্ডার মেশিন ও অন্যান্য সরঞ্জাম।এই চক্রে আর কারা জড়িত খতিয়ে দেখা হচ্ছে।গত জানুয়ারি মাসে,  ভেজাল পোস্ত উদ্ধারে চাঞ্চল্য ছড়াল পোস্তায়। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে, মহর্ষি দেবেন্দ্র রোডের একটি দোকানে হানা দেয় এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ। হাতে নাতে গ্রেফতার করা হয় ১ জনকে। আধিকারিকরা দেখেন, দোকানের ভেতর একটি গোপন কুঠুরিতে দুই মহিলা কর্মীকে দিয়ে এই ভেজাল মেশানোর কাজ চলছিল। জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জানতে পারে, কলকাতাসহ সংলগ্ন এলাকায় এই ভেজাল পোস্তের ব্যবসা চালিয়ে বিপুল টাকার মুনাফা করা হত।