বিনা মূল্যে প্রশিক্ষণ নিয়ে নিশ্চিত চাকরির সুযোগ দিতে জব ফেয়ার হুগলিতে

অবতক খবর,১৯ জানুয়ারি: হুগলি জেলায় অসংখ্য ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প রয়েছে সেখানে দক্ষ ও অদক্ষ কর্মিরা কাজ করেন।এছাড়াও কলেজ পার্ক রিসোর্ট গুলোতে হসপিটালিটির কাজের সুযোগ।সেখানে কর্মি নিয়োগ করতে গেলে বিজ্ঞাপন দিয়ে তাদের নির্বাচন করে প্রশিক্ষণ দিতে হয়।তারপর কাজের সুযোগ পান।এই ধরনের জব ফেয়ার থেকে চাকরি প্রার্থী পেলে অনেক সুবিধা হয়।তারা প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত হয় ফলে সরাসরি কাজে যোগ দিতে পারে।

সাইনোসিওর ইন্ডাস্ট্রির উদ্যোগে উৎকর্ষ বাংলার সহযোগিতায় এই মেগা জব ফেয়ারের আয়োজন হয় পোলবার সুগন্ধায়।পশ্চিমবঙ্গ সরকারের উৎকর্ষ বাংলার টেকনিক্যাল ইডুকেশান ট্রেনিং ও স্কিল ডেভেলপমেন্ট বিভাগের সহযোগিতায় এই জব ফেয়ারে নাম নথিভুক্ত করার পর।যোগ্য প্রার্থীদের নির্বাচনের পর তাদের বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।প্রশিক্ষণ শেষে চাকরির সুযোগ পাবেন।টাটা মোটরস,বিকাশ গ্রুপ,ভালেও চেন্নাই প্রডাকশান সহ হুগলির স্থানীয় একাধিক সংস্থায় এদিন নাম রেজিষ্ট্রেশন করায় কয়েক হাজার প্রার্থী।

সাইনোসিওরের ডিরেক্টর সম্পূর্ণা ঘোষ বলেন,পশ্চিমবঙ্গের মূল সমস্যা হল চাকরি।রাজ্য সরকার উৎকর্ষ বাংলা একটা খুব ভালো প্রকল্প।এর মাধ্যমে ছেলে মেয়েদের প্রশিক্ষণ দিয়ে তৈরী করা হবে।২৬ টি কোম্পানীতে তিন হাজারের বেশি শূন্য পদ রয়েছে।সরকারি সহযোগিতায় প্রশিক্ষণ প্রাপ্তরা চাকরির সুযোগ পাবে।সরকারের গাইড লাইন অনুযায়ী থিওরি ও প্র্যাকটিক্যাল প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে সাইনোসিওর কারখানা ক্যাম্পাসে।কাজ অনিযায়ী দু তিন মাস হবে প্রশিক্ষণ। চাকরিপ্রার্থীদের স্কিল ডেভালপমেন্ট করিয়ে প্রশিক্ষণ ও গ্রুমিং শেষে যোগ্যতা অনুযায়ী প্লেসমেন্ট দেওয়া হবে।এর জন্য এক টাকাও খরচ করতে হবে না।
আমরা চাই বাংলার ছেলে মেয়েরা যেন চাকরি পায়।এই জব ফেয়ার প্রথম শুরু হল।আগামী দিনে আবারও হবে।
উৎকর্ষ বাংলার পক্ষে উপস্থিত ছিলেন প্রসেনজিৎ সাধুখাঁ। তিনি বলেন,আমরা বলছি আপনারা চাহিদা মত লোক নিয়োগ করুন প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা আমরা করব।

হুগলি চেম্বার অফ কমার্সের তরফে উপস্থিত ছিলেন সেখ নাসিরুদ্দিন।তিনি বলেন,অনেক সময় দক্ষ শ্রমিকের অভাব হয়।অনেক সময় বাইরে থেকে কাজের লোক আনতে হয়।এই রকম সুযোগকে কাজে লাগিয়ে বেকার যুবক যুবতীরা প্রশিক্ষণ নিয়ে তাদের যোগ্যতা অনুযায়ী কাজ পাবেন।আমরাও আমাদের কারখানায় প্রয়োজন মত লোক নিয়োগ করতে পারব।এই উদ্যোগ খুবই ভালো।
অভিজিৎ বিশ্বাস তার সংস্থার হসপিটালিটির জন্য লোক নিয়োগ করবেন।তিনি বলেন,এখানে কাজের চাহিদা থাকলেও কর্ম সংস্কৃতি নিয়ে প্রশ্ন আছে।টেকনিক্যাল হোক বা নন টেকনিক্যাল এই সমস্যা দেখা যায়।
বিধায়ক অসিত মজুমদার বলেন,বাংলায় শিল্পের পরিকাঠামো গুলোয় দক্ষ শ্রমিক তৈরী হবে।বিভিন্ন সংস্থা তাদের প্রয়োজন মত শ্রমিক এখান থেকে পাবে।
চাকরি প্রার্থীরা বলেন,প্রশিক্ষণ নেবার জন্য রেজিষ্ট্রেশন করিয়েছি।প্রশিক্ষণ শেষ চাকরির সুযোগ পেলে ভালো হবে।
মেগা জব ফেয়ারের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চুঁচুড়ার বিধায়ক অসিত মজুমদার,পোলবা দাদপুর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মালতি হাঁসদা,বিভিন্ন ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পপতি ও সংস্থার প্রতিনিধিরা।।।