বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পুড়ে নষ্ট হলো প্রায় কোটি টাকার সামগ্রী

অবতক খবর,মালদা, ৪ ফেব্রুয়ারি: বিধ্বংসী অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পুড়ে নষ্ট হলো প্রায় কোটি টাকার সামগ্রী। শনিবার মধ্যরাতে পুরাতন মালদা থানার নারায়নপুর শিল্পাঞ্চল এলাকায় গুজরাট অম্বুজা স্টার্টচ ইন্ডাস্ট্রিতে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটে । তাতেই ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয় । ঘটনার খবর পেয়ে ইংরেজবাজার শহর থেকে দমকলের তিনটি ইঞ্জিন ওই ইন্ডাস্ট্রিতে গিয়ে পৌঁছায় ।

পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে পুরাতন মালদা থানার পুলিশ। রাত সাড়ে বারোটা থেকে শুরু হয় আগুন নেভানোর কাজ। চলে মধ্যরাত পর্যন্ত। প্রায় সাড়ে তিন ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। যদিও এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি কিভাবে ঘটলো তা পরিষ্কার করে জানাতে পারে নি দমকলের কর্মীরা। তবে মনে করা হচ্ছে শর্ট সার্কিট থেকে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটে থাকতে পারে।

পুরাতন মালদা শিল্পাঞ্চলে অবস্থিত গুজরাট আম্বুজা স্টার্চ ইন্ডাস্ট্রির কমার্শিয়াল ম্যানেজার রঞ্জন নিয়োগী জানিয়েছেন, প্রতিদিনই এই ইন্ডাস্ট্রিতে অধিক রাত পর্যন্ত কাজকর্ম হয়ে থাকে। এদিন শনিবার থাকার কারণেই কিছুটা আগেই কাজ সম্পন্ন হয়েছিল। এরপরই রাত বারোটা নাগাদ জানতে পারি ইন্ডাস্ট্রির গোডাউনের আগুন লেগেছে। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় । প্রায় ২৫০ টন ভুট্টা সহ নানান সামগ্রী পুড়ে নষ্ট হয়েছে। যার মূল্য প্রায় কোটি টাকা বলে অনুমান করা হচ্ছে। কি করে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটলো তা এখনই বোঝা যাচ্ছে না। পুরো বিষয়টির দমকল এবং পুলিশ প্রশাসনের কর্তারা তদারকি করে দেখছে।

এদিকে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার পর রবিবার সকাল থেকে গুজরাট অম্বুজা স্টার্চ ইন্ডাস্ট্রিতে কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। সেখানে নতুন করে পুলিশ ও প্রশাসনের কর্তারা তদন্তে এসেছেন। ওই ইন্ডাস্ট্রির দায়িত্বে থাকা নিরাপত্তা রক্ষীরা আপাতত তদন্তের জন্যই অবাধ প্রবেশ বন্ধ রেখেছে বলে জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, পুরাতন মালদা শিল্পাঞ্চল এলাকায় গুজরাট অম্বুজা ইন্ডাস্ট্রিতে ভুট্টা থেকেই নানান ধরনের খাদ্য সামগ্রী উপকরণ তৈরী করা হয়। যা মূলত দিল্লি, পাঞ্জাব , উত্তরপ্রদেশ, রাজস্থান, মহারাষ্ট্র সহ বিভিন্ন রাজ্যে রপ্তানি করা হয়ে থাকে। এমনকি বিদেশের বাজারেও ভুট্টা থেকে উৎপাদিত খাদ্য সামগ্রির রপ্তানি করা হয় পুরাতন মালদার শিল্পাঞ্চলের এই ইন্ডাস্ট্রি থেকে।