বড়দিনে কেকের চাহিদা চাহিদা তুঙ্গে হলেও মূল্যবৃদ্ধিতে কিছুটা অসন্তোষ ক্রেতাদের,মন্তেশ্বর এলাকায়

অবতক খবর,২৫ ডিসেম্বর,জ্যোতির্ময় মন্ডল,পূর্ব বর্ধমান:বড়দিনের উৎসবে সেজে উঠেছে মন্তেশ্বর এলাকা। কেকের গন্ধে ম ম করছে গোটা মন্তেশ্বর। ২৫শে ডিসেম্বর খিষ্ট ধর্মালম্বীদের কাছে এই দিনটি খুব গুরুত্বপূর্ণ দিন। ২৫ শে ডিসেম্বর দিনটি যীশু খ্রীষ্টের জন্মদিন হিসেবে পালন করা হয় সারা বিশ্বজুড়ে । আর এই দিনটিকে অনেকে বড় দিন বলে থাকেন। বিশেষ করে বাঙালির কাছে এই দিনটি বড়দিন হিসেবেই পরিচিত হয়ে গেছে। আর এই দিনটিকে কেন্দ্র করে নানান আনন্দ উৎসবে মেতে ওঠেন খ্রিস্টানদের পাশাপাশি হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান, সব ধর্মালম্বী মানুষজনই । আর এই আনন্দের অন্যতম অঙ্গ হলো কেক, যা সাদে গন্ধে মন জয় করে নেয় সাধারণ মানুষের। অন্যান্য বারের মতো এবারও মন্তেশ্বর এলাকায় এইদিনই কেকের চাহিদা তুঙ্গে।

কেক কেনার জন্য ভিড় জমান মন্তেশ্বর এলাকার বিভিন্ন কেকের দোকানে। ২৪ শে ডিসেম্বর সন্ধ্যা থেকই মন্তেশ্বর এলাকার স্টেশনারি দোকানগুলিতেই বড়দিনকে কেন্দ্র করে কেক কেনার জন্য আগ্রহী ক্রেতাদের ভিড় দেখা যায়। সাধারন ক্রেতাদের কথায় বড়দিন মানে সান্তাক্লজ , ক্রিস্টমাস ট্রি, নানান স্বাদের কেকের অন্যতম আকর্ষন। কেকের স্বাদ উপভোগ করার ইচ্ছাটা এই সময় প্রায় সব বয়সী মানুষদের মধ্যে লক্ষ্য করা যায়। তাই তারা অনেকের দোকানে এসে ভিড় করেন। এক বিক্রেতা জানান গতকাল রাত থেকে কেকের কেনাকাটা ভালো রকম শুরু হয়ে গেছে।

তবে কেক বিক্রেতা দোকান মালিকদের কথায় কেকের দাম কিছুটা বেড়েছে ঠিকই তা নিয়ে ক্রেতাদের মধ্যে প্রশ্নও রয়েছে, তবুও ক্রেতাদের কেনার জন্য ভিড় রয়েছে।

কারন বছরে এইদুই চারটে দিন কেক খাওয়ার স্বাদটাই আলাদা। বড়দিনের এই সুযোগটা এনে দেয় ক্রেতা সকলদের কাছে । তাই অনেকেই এই সময় কেকের স্বাদ থেকে বঞ্চিত হতে চান না।

বড়দিন কে কেন্দ্র করে কেকের বিক্রি যে হবেই এই গ্যারান্টিটা কিন্তু রয়েছে বিক্রেতাদের মনের মধ্যে । আর তাই দামের দিকে না তাকিয়ে ক্রেতা ও বিক্রেতা উভয়ই এখন দোকানে কেকের আদান-প্রদান নিয়ে ব্যস্ত হয়ে উঠেছেন। তাই বড়দিন উদযাপনে কেকের সাথে মন ভরানোটাই তাদের এখন অন্যতম লক্ষ্য।