অবতক খবর,১ আগস্ট,মালদা:- পণের দাবিতে গৃহবধূকে বেধড়ক মারধর করার অভিযোগ উঠল স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির বিরুদ্ধে। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে মালদা জেলার কালিয়াচক থানার গোলাপগঞ্জ এলাকায়। আহত গৃহবধূ সাহেলা সুলতানা বয়স (২১)বছর। চিকিৎসাধীন মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায় বিগত তিন বছর আগে কালিয়াচক থানার অন্তর্গত যদুপুর এলাকার সাহেলা সুলতানের সাথে সামাজিক মতে বিবাহ হয় গোলাপগঞ্জ এলাকার সিজিল মিঞার সাথে। পরিবারে তাদের এক কন্যা সন্তানে রয়েছে।

পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে আরও জানা যায়, বিয়ের পর থেকেই পনের দাবিতে গৃহবধূ কে তার স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকেরা শারীরিক ও মানসিক অত্যাচার করে। সেই মতো আবার এক লক্ষ টাকার ফোনের দাবি করে ওই গৃহবধুর শ্বশুরবাড়ির লোকেরা।টাকা না দেওয়াই ওই গৃহবধূকে বেধড়ক মারধর করে তার শ্বশুরবাড়ি লোকেরা।

খবর পেয়ে গৃহবধূর বাবার বাড়ি লোকেরা ছুটে আসে। আহত অবস্থায় ও গৃহবধূকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। বর্তমানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওই গৃহবধূ চিকিৎসাধীন মালদা মেডিকেলে। এই ঘটনায় কালিয়াচক থানায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুরো ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে কালিয়াচক থানার পুলিশ।