ধান-আলুর পাশাপশি অর্থকরী ফসল হিসেবে আখ চাষে লাভের মুখ দেখছে গড়বেতার কৃষকরা

অবতক খবর,২৪ জানুয়ারি,গড়বেতা,পশ্চিম মেদিনীপুর: পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার কেশপুর ও গড়বেতা, কৃষি প্রধান এলাকা। মূলত ধান ও আলু এই এলাকার প্রধান চাষ। আগেকার দিনে প্রত্যেকের বাড়িতে কমবেশি লাগানো হতো আখ! আখ থেকে গুড় তৈরি করার জন্য বসানো হতো সাল। তবে সময়ের সাথে সাথে এখন প্রায় বিলুপ্তির দিকেই চলে এসেছিলো আখ চাষ! তবে হঠাৎ করে আবার আখ চাষের উপর জোর দিয়েছে গড়বেতা ব্লকের মেটাডহর গ্রামের চাষীরা।

চাষী মমতাজ খান জানান, ধান আলুর তুলনায় অনেকটাই লাভজনক এই চাষ। তবে সময় মত ওষুধ প্রয়োগ করতে হয়। আঁক মিষ্টি হওয়ার কারণে পোকামাকড়ে খেয়ে নেওয়ার প্রবণতাটা একটু বেশি দেখা যায়। পাশাপাশি সরকারি সাহায্য পেলে আরও ভালোভাবে চাষ করা যাবে বলে জানান তিনি। অপর এক চাষী আহমদুল্লাহ খান জানান, অন্যান্য চাষের তুলনায় লাভ বেশি। বিঘে প্রতি প্রায় ৩০-৩৫ হাজার টাকা লাভ হয়।

তিনি আরো বলেন যারা আলু ও ধান চাষের প্রতি বেশি আকৃষ্ট হচ্ছেন, তারা আখ চাষ করুন লাভ ভালো হবে। তবে এখন আখ থেকে গুড় তৈরি করতে আর মেশিন বসানো হয়না। হকাররা এসেই পিস হিসেবে কিনে নিয়ে চলে যায়। যখন ধান-আলুতে চাষীদের আয় কমে আসছে, ঠিক তখন আখ চাষ হাসি ফোটাচ্ছে কৃষকদের মুখে। আবারো একটু একটু করে আখ চাষের হাত ধরে বুক বাঁধছে গড়বেতার কৃষকরা।