তিনদিনের বৃষ্টিতে উঠে গেছে পিচের চাদর, ধসে গিয়েছে রাস্তা, যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হওয়ার পরিস্থিতি, ব্যাপক সমস্যায় দুই গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ, দ্রুত সংস্কারের দাবিতে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ

অবতক খবর,মালদা;সানু ইসলাম;২৫সেপ্টেম্বর: দীর্ঘদিন ধরে সংস্কার হয়নি রাস্তা।উঠে গেছে পিচের চাদর।রাস্তার একাধিক জায়গায় ছোট-বড় গর্ত।তিন দিনের বৃষ্টিতে যা কার্যত জলাশয়ের রূপ নিয়েছে। রাস্তা তো নয় যেন মরণফাঁদ। তার মধ্যে দিয়েই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে গ্রামবাসীকে।চলাচল করতে পারছে না যানবাহন। স্কুল এবং মাদ্রাসায় যেতে ব্যাপক সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে ছাত্র-ছাত্রীরা।গত তিন দিনের বৃষ্টিতে জলের তোরে কার্যত রাস্তা ভেঙে গিয়েছে।

সোমবার দ্রুত রাস্তা সংস্কারের দাবিতে গ্রামীণ সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করলেন মালদার হরিশ্চন্দ্রপুর ১ নম্বর ব্লকের ভিঙ্গল গ্রাম পঞ্চায়েতের বৈরাট এবং সুরতপুর এলাকার মানুষেরা।বৈরাট থেকে চিতলিয়া পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার গ্রামীণ সড়কের বেহাল দশা। সাত বছর আগে তৈরি হয়েছিল ওই রাস্তা। তারপরে আর হয়নি কোন সংস্কার। দীর্ঘদিন ধরেই রাস্তার একাধিক জায়গায় পিচের চাদর উঠে গিয়ে ছোট বড় গর্ত হয়।কিন্তু গত তিন দিনের বৃষ্টিতে প্রায় সম্পূর্ণ রাস্তা ধসে গিয়েছে।ধশ নেমেছে রাস্তার দুই পাশেও। এদিকে সুরতপুর এবং বৈরাট গ্রামের মানুষকে চাঁচল বা হরিশ্চন্দ্রপুর যেতে গেলে এই রাস্তা দিয়েই যেতে হয়। এটি গ্রামের মূল রাস্তা। স্বাভাবিক ভাবেই চরম সমস্যায় পড়তে হয়েছে প্রায় কয়েক হাজার গ্রামবাসীকে। ভিঙ্গল হাই স্কুল এবং চিতলিয়া হাই মাদ্রাসার ছাত্র-ছাত্রীদেরও পড়তে হচ্ছে সমস্যার মুখে।এই মুহূর্তে রাস্তা একদমই চলাচলের অযোগ্য। তাই দ্রুত রাস্তা সংস্কারের দাবি জানিয়েছে এলাকাবাসী।

স্থানীয়রা বলেন রাস্তা বর্তমানে প্রায় নেই বললেই চলে।যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হওয়ার মতো পরিস্থিতি। তাই আমরা দ্রুত সংস্কারের দাবিতে আজ বিক্ষোভ করছি।

এই প্রসঙ্গে ভিঙ্গল গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান বর্ষা বসাক জানিয়েছেন ওই রাস্তা পূর্ত দপ্তরের অধীনে থাকায় পিচের কাজ করা পঞ্চায়েতের পক্ষে সম্ভব না। তবে বর্তমানে সমস্যা সমাধানের জন্য পঞ্চায়েত থেকে অস্থায়ীভাবে রাস্তা সংস্কার করা হবে।আর স্থায়ী সংস্কারের জন্য প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলবে পঞ্চায়েত।