টাল মিটনিক যুদ্ধে যাবে না/তমাল সাহা

১৮ বছরের ইসরাইলি তরুণ টাল মিটনিক সোচ্চার প্রতিবাদে জানিয়েছে সে যুদ্ধে যাবে না। ইসরাইল সরকার তাকে এক মাসের কারাদণ্ডের সাজা দিয়েছে।
অভিবাদন, টাল মিটনিক!

টাল মিটনিক যুদ্ধে যাবে না
তমাল সাহা

কাকে যুদ্ধ বলে আমাকে শিখিও না!
যুদ্ধ! যুদ্ধ!যুদ্ধ!
যুদ্ধে মানুষ মরে শুধু।
রক্তপাত ঘটিয়ে নিরাপত্তা আনা যায় নাকি?

এসব আমাকে বিশ্বাস করতে বলো?
শোধবোধ নেই, শুধু প্রতিশোধ?

যারা আমাকে জন্ম দিয়েছে,
তারা আমাকে শিখিয়েছে মানবিক মূল্যবোধের কথা। তারা শিখিয়েছে আলোচনায়,
তর্কে নয় বিতর্কে
সবকিছুই মিটিয়ে নেওয়া যায়।
আমি এমন একটি পবিত্র পরিবারের জন্মেছি,
সেখানে তারা আমাকে এমনই শিখিয়েছে।

ইচ্ছে করলেই তো রক্তপাত ঘটানো যায়। মানুষকে মেরে ফেলা যায়। তার আগে ভাবতে আলোচনা করতে অসুবিধে কোথায়?
মৃত্যুর জন্যই কি জীবন! প্রশ্ন তুলে দিয়েছে সে।

পৃথিবী দুর্নীতিতে স্বার্থে ভরে গেছে সেখানে যুদ্ধ আরো হিংসা ছড়াচ্ছে।
আমি মানুষ মারতে কেন যুদ্ধে অংশ নেব। আমি অংশ নিতে পারি না, এটাই আমার নীরব সোচ্চার প্রতিবাদ!

বদলা! এ আবার কোন হিংস্র শব্দ?
আস্ফালন হাহাকার জীবন-অবরুদ্ধ।
লাশের বাগানে অজস্র শিশু ফুল
ফুটে আছে নীরব নিশ্চুপ নিস্তব্ধ!