অবতক খবর,৩০ ডিসেম্বর: যত হাঁটবেন তত হাসবেন ” এই বার্তাকে সামনে রেখে জ্বালানী খরচ বাঁচিয়ে ও পরিবেশ দূষণ প্রতিরোধের লক্ষ্যে পায়ে হেঁটে সারা ভারত ভ্রমন শুরু করেছেন ছত্রিশগড় রাজ্যের বরোদা বাজার এলাকার দুই যুবক সৌরভ ও জিতেশ। উদ্দেশ্য পায়ে হেঁটে ভারত ভ্রমনের মাধ্যমে সাধারন মানুষকে হাঁটার বার্তা দেওয়া এবং নিজেকে নানান রোগ থেকে মুক্ত রাখা। ছত্রিশগড় থেকে রওনা হয়ে পায়ে হেঁটে ভুবনেশ্বর কলকাতা হয়ে আজ এসে পৌঁছেছেন উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ শহরে। এরপর সিকিমের গ্যাংটক হয়ে উত্তরপূর্ব ভারত যাবেন তারা।

চলতি বছরের ২১ অক্টোবর ছত্রিশগড়ের বরোদা বাজারের দুই যুবক সৌরভ দিবাঙ্গন ও জিতেশ শর্মা পায়ে হেঁটে সারাভারত ভ্রমনের উদ্দেশ্যে রওনা হন। ভারতবর্ষের ২৮ টি অঙ্গরাজ্য পায়ে হেঁটেই পরিভ্রমন করবেন তাঁরা। ৩ বছরের এই ভারত ভ্রমন পরিক্রমা কর্মসূচীতে আজ তাঁরা এসে পৌঁছেছেন উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ শহরে। পরিভ্রমনকারী জিতেশ শর্মা জানালেন, ভারতবর্ষের প্রতি দশ কিলোমিটার অন্তর অন্তর মানুষের জীবনযাত্রার বদল ঘটে, সংস্কৃতির বদল ঘটে। সেই পরিবর্তন এবং ভারতবর্ষের সংস্কৃতি পর্যবেক্ষণ করতেই তাঁদের এই পরিভ্রমণ।

কিন্তু ওড়িষার সীমান্ত পার হয়ে বাংলায় প্রবেশ করতেই তাঁরা দেখতে পেলেন এখানে তীব্র যানজট এবং সাধারন মানুষ অল্প প্রয়োজনেই মোটরবাইক ও গাড়ি ব্যাবহার করেন। ফলে একদিকে যেমন বাড়ছে পরিবেশের দূষণ অপরদিকে বাড়ছে জ্বালানি খরচ। তাই তাঁদের বার্তা জ্বালানীর খরচ বাঁচানোর পাশাপাশি দূষন প্রতিরোধে এবং শারীরিকভাবে সুস্থ থাকার লক্ষ্যে মানুষের হাঁটা উচিত। মানুষকে আমরা হাঁটার কথা বলতেই আমাদের এই পায়ে হেঁটে ভারত ভ্রমন।