অবতক খবর,২৭ জানুয়ারি: বিজেপি নেতাদের হাত-পা ভেঙে দেওয়ার হুঁশিয়ারি জেলা তৃণমূল সভাপতি আব্দুর রহিম বকশির।মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুরের ভালুকা বাজারে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে বঞ্চনার অভিযোগে প্রতিবাদ সভা থেকে মালদা উত্তরের বিজেপি সাংসদ ও বিজেপি নেতাদের বেনজির আক্রমণ মালতিপুরের তৃণমূল বিধায়ক তথা জেলা তৃণমুল সভাপতি আব্দুর রহিম বক্সী।গ্রামে ঢুকতে না দেওয়ার হুঁশিয়ারি, জুতার মালা পরানোর নিদান।

এদিন বক্তব্য রাখার সময় আব্দুর রহিম বক্সি বলেন,একদিকে মমতা ব্যানার্জি যখন উন্নয়নমূলক কাজ করছে তখন অন্যদিকে বিজেপিরা পশ্চিমবঙ্গটাকে ধ্বংস করার চেষ্টা করছে।তারা চেষ্টা করছে পশ্চিমবঙ্গটাকে কিভাবে ধ্বংস করে দেওয়া যায়। ভারতবর্ষের ক্ষমতায় টিকে থাকা যায়।জেনে রাখো বিজেপির বন্ধু নরখাদকের দল, মানুষ হত্যাকারীর দল,নরখাদক যেমন মানুষের রক্তের জন্য খা খা করে বিজেপির ওই বড় নরখাদক আর কিছু দালাল পুষেছে পশ্চিমবঙ্গের বুকে যারা টিভিতে মুখ দেখায় বিরোধী দলের নেতা হিসেবে। সেই নরখাদক জেনে রাখো তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীরা তোমাদের ওই দাঁত হাত পা ভেঙে চুরমার করে দেবে।আগামী দিনে প্রত্যেকটা নরখাদকের দাঁত ভেঙে দেব আমরা। গরিব মানুষের স্বার্থে লড়াই হবে মমতা ব্যানার্জি নেতৃত্বে। আগামী দিনে পশ্চিমবঙ্গ পথ দেখাবে গোটা ভারতবর্ষকে।

আমরা দেখছি লোকসভা ভোটে এখানকার এমপি নতুন করে নেমে গেছেন রাস্তায়।গ্রামে গ্রামে ফুলের মালা গলায় পড়ছেন।কিছু মানুষকে আগে থেকেই টাকা দিয়ে দিচ্ছেন বলছেন তোরা ফুলের মালা তৈরি করে রাখিস আমি যখন গ্রামে ঢুকবো তখন পরিয়ে দিবি। টিভিতে দেখাবো আর বলবো গ্রামের মানুষ আমাকে খুব ভালোবাসে। জেনে রাখুন এমপি বাবু জেনে রাখুন বিজেপির বন্ধুরা খাটতে খাটতে ১০০ দিনের কাজে গরিব মানুষের পায়ের জুতোটা শেষ হয়ে গেছে সেই গরীব মানুষের পায়ের জুতোর মালা পরানো হবে।

এখানকার যারা মানুষরা আছেন তাদের কাছে আমরা আপিল করতে চাই একবার সবাই মিলে,যে মমতা ব্যানার্জি চোখের জল ফেলেন।আমাদের জন্য আসুন না বন্ধু একসাথে সবাই মিলে আজকে বাইক র‍্যালি ও প্রতিবাদ সভার মধ্য দিয়ে শপথ গ্রহণ করি যে বিজেপির এমপি যে বিজেপির নেতা আমাদের একাউন্টে ১৫ লক্ষ টাকা দেয়নি। যে বিজেপির নেতা এমপি ২ কোটি চাকরির প্রতিশ্রুতি রাখেনি।যে বিজেপির এমপি যে বিজেপির নেতা যে বিজেপির বিরোধী দলনেতা আমাদের সামাজিক নিরাপত্তা দেয়নি যারা প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেনি। গ্রামের মানুষেরা ব্যারিকেড তৈরি করে সেই বিজেপি নেতাদের গ্রামে ঢুকতে দেবো না।

উত্তর মালদার বিজেপির সাংসদ খগেন মুর্মু বলেন,রাস্তাগাট কি তৃণমূলের সম্পত্তি নাকি। আমি সব জায়গায় যাচ্ছি। আসলে তৃণমূল কংগ্রেস সব জায়গায় ব্যারিকেড হচ্ছে। মানুষ ওদেরকে ব্যারিকেড করছে। ওনাকে হইতো আটকাচ্ছে তাই এসব বলছে। আমাকে আটকাচ্ছে না ওনাকে আটকাবে। মানুষ সব হিসাব তাদের কাছ থেকে বুঝে নেবে। আমাদের কাছে নয়। তৃণমুল কংগ্রেস নরগাদখ না এরা সর্বভুক। এরা সব কিছু খাই। বিজেপি মানুষকে সেবা করে। তৃণমুল নেতাদের সব কিছু ভাঙবে শুধু সময়ের অপেক্ষা। তৃণমুলের দুইকান কাটা তাই তারা রাস্তার মাঝখান দিয়ে চলছে আর প্রক্যশে চুরির কথা বলছে।