চলে গেলেন নিউ বারাকপুরে বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতা তপন দাস

অবতক খবর,১৫ জানুয়ারি,নববারাকপুর : চলে গেলেন নিউ বারাকপুর শহর তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি তথা বর্ষীয়ান তৃণমূল নেতা তপন দাস। রবিবার রাত ১২ টা ৩৫ মিনিট হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে নিজ বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যু কালে বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর।তিনি ছিলেন অকৃতদার। সোমবার সকালে মৃত্যুর খবর পৌঁছতেই এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

পুরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডে কালি বাড়ি গার্লস স্কুল রোডে তপন দাসের বাড়িতে শ্রদ্ধা জানাতে হাজির হন রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী রথীন ঘোষ, নিউ বারাকপুর পুরসভার চেয়ারম্যান প্রবীর সাহা,ভাইস চেয়ারম্যান স্বপ্না বিশ্বাস, মধ্যমগ্রাম পুরসভার চেয়ারম্যান নিমাই ঘোষ,উপপুরপ্রধান প্রকাশ রাহা, পুর পারিষদ সদস্য সুভাষ বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রহ্লাদ দত্ত, বারাসত পুরসভার পুরপ্রধান অশনি মুখোপাধ্যায়, ব্যারাকপুর ২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি প্রবীর রাজবংশী,উত্তর দমদম পুরসভার পুর পারিষদ সদস্য সৌমেন দত্ত, দেবাশিস ঘোষ, পশ্চিমবঙ্গ তৃণমূল কংগ্রেসের আইটি ও সোশ্যাল মিডিয়ার রাজ্য কমিটির সদস্য দেবাশিষ দত্ত সহ নিউ বারাকপুরে বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলররা, ছাত্র, যুব মহিলারা ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃত্বরা।তাকে শেষ দেখা দেখতে বাড়িতে বহু মানুষ ভীড় জমায় ।

উল্লেখ্য গত বছর নভেম্বরে একটি বেসরকারি হাসপাতালে তার বুকে পেসমেকার বসানো হয়।মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, সাংসদ সৌগত রায় এমনকি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও ব্যক্তিগত ভাবে চিনতেন তপন দাস কে। ১৯৯৮ সালে তৃণমূল কংগ্রেস গঠনের পর এলাকার টাউন কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও ছিলেন তপন দাস। ২০০৪ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত নিউ বারাকপুরে শহর তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি ছিলেন। ২০০৫ সালে দলবিরোধী কাজের জন্য বহিষ্কৃত হন। পরে আবার তৃণমূল কংগ্রেসের নেতৃত্বে ফিরে আসেন।২০২০ থেকে তপন আবার নিউ বারাকপুরে রাজনীতিতে সক্রিয় হন। বহিষ্কার হয়ে তপন এলাকায় ততটা সক্রিয় না হলেও মধ্যমগ্রাম বিধানসভার বিধায়ক ও খাদ্যমন্ত্রী রথীন ঘোষের এলাকায় কাজ করত। রথীন ঘোষের খুব ঘনিষ্ঠ ছিল তপন। সোমবার সকালে মন্ত্রী তপনের বাড়িতে এসে চোখে জল নিয়ে কর্মীদের সামনে স্মৃতিচারণা করে বলেন তপন সত্যিই কর্মীদের নেতা ছিলেন।

নববারাকপুর পুরসভার চেয়ারম্যান প্রবীর সাহা তপন দাসের আকষ্মিক প্রয়াণে শোকস্তব্ধ হয়ে বলেন আমার কাছে এক অপূরণীয় ক্ষতি হল। দলের প্রতি জীবন সমর্পিত কর্মী খুব কম দেখা যায়। তিনি দীর্ঘদিন নিউ বারাকপুরে তৃণমূল কংগ্রেসেকে পথ দেখিয়েছেন।মরদেহ বাড়ি থেকে শহর তৃণমূল কংগ্রেসের কার্যালয়ে নিয়ে মালা ও ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান নেতৃত্বরা। বরাহনগর মহাশশ্মানে শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়।রাজ্যের অর্থমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য তপন দাসের আকস্মিক প্রয়াণে গভীরভাবে শোকাহত হয়ে পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।