অবতক খবর,২৮ জুন: কুলি চৌরাস্তা সাধারণ বিদ্যাপীঠ স্কুলের গেটের সামনে বহিরাগতদের তাণ্ডব। শিক্ষককে হুমকি, শিক্ষকের বাড়িতে গিয়ে বিচ্ছিরি ভাষায় গালিগালাজ এবং হুমকি । সবটাই ঘটেছে বড়ঞা থানার কুলি সাধারণ বিদ্যাপীঠ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রতিদিন স্কুল শুরু টিফিন আওয়ার এবং ছুটির সময় স্কুল গেটের সামনে বহিরাগতদের চলে বাইক নিয়ে দাপাদাপির। টোন টিটকির। ইত্যাদি। ফলে স্কুল ছাত্রীদের পক্ষে বিষয়টি অসহ্য হয়ে উঠছিল। ছাত্রীরা শিক্ষকদের ঘটনার কথা জানায়।

এ নিয়ে কয়েক দিন আগে ভূগোল শিক্ষক ইকবাল মাতিন বহিরাগতদের সাবধান করেন। কিন্তু এর ফল হয় বিপরীত। ওই শিক্ষককেই শিক্ষা দিতে কলাটে ধরে নিগ্রহ করে। বহিরাগত রা।

এদিকে বৃহস্পতিবার স্কুল খোলার সাথে সাথে ফের বহিরাগতরা তান্ডব শুরু করে। সেই সময় এক স্কুল শিক্ষক প্রতিবাদ করলে সেই শিক্ষককেও হুমকি দেওয়া হয়। তার বাড়িতে গিয়ে গালিগালাজ এবং হুমকি দেয় । এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়।

স্কুলের সমস্ত শিক্ষক এবং স্থানীয় ব্যবসায়ীরা, ওই বহিরাগতদের ধরে ফেলেন। পরে তাদের অভিভাবকদের ডেকে পাঠানো হয়। যদিও বিষয়টি পুলিশের হাতে তুলে না দিয়ে শেষ বারের মতো শুধরে নেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। কুলি চৌরাস্তা সাধারণ বিদ্যাপীঠের কিছু শিক্ষক ক্যামেরার সামনে বলতে না চাইলেও তিনারা বলেন আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। আমরা বাইরে থেকে শিক্ষাগতা করতে আসি এই স্কুলে। স্কুল ছুটির পর আমাদের সঙ্গে কি হবে আমরা বুঝে উঠতে পারছিনা। সাধারণ বিদ্যাপীঠের একজন শিক্ষক নাম জানাতে অনিচ্ছুক। তিনি বলেন এইখানকার স্থানীয় শিক্ষকদের উপরে হামলা করছে বাড়িতে গিয়ে হুমকি দিয়ে আসছে। আমরা তো বাহিরে থেকে আসি আমাদের কি অবস্থা হবে একটু ভাবুন। তবে সাধারণ বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক তিনি বলেন আমাদের ছাত্র আমরা অভিভাবক। তাই অভিভাবক নিয়ে আমরা মীমাংসা করে নিয়েছি।

পরিবর্তিতে যদি কোন এরকম শিক্ষককে নিগ্রহ করা হয়। তাহলে আমরা স্কুলের পক্ষ থেকে প্রশাসনকে জানাতে বাধ্য। জানিয়েছেন স্কুলে প্রধান শিক্ষক। বাংলার শিক্ষক মানিক চাঁন তিনি বলেন বিষয়টা প্রধান শিক্ষককে জানিয়েছি। কয়েকদিন আগে ভূগোলের শিক্ষক ইকবাল মাতিন কে আমার মত হুমকি এবং নিগ্রহ করা হয়। এ বিষয়ে আমরা অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলব তারা আমাদেরই ছাত্র। আর যারা বহিরাগত আসছে তাদের ঠেকাতে প্রশাসনকে জানাবো।