কালিদা বা কালীদার প্রতি/তমাল সাহা

কালিদা বা কালীদার প্রতি
তমাল সাহা

এই কি জীবন কালিদা বা কালীদা—
এ বাক্যটি কে প্রথম বলেছিল আমি জানিনা।
যে বলেছিল সে খুব সহজ সরল মানুষ ছিল এবং সহজভাবেই এই শুদ্ধ উচ্চারণ করেছিল,
এটা আমি বুঝি।

যে বলেছিল সে কতখানি শিক্ষিত ছিল আমি জানিনা। তবে তার জীবনবোধ ছিল।
সে জীবন মানে জানতো কিন্তু কালিদা বা কালীদার উদ্দেশ্য বলেছিল কেন সে আমি এখনো জানিনা।
আমি সে বিষয়টি নিয়েই গবেষণায় মেতেছি।

জীবনটা কি?
জীবনটা যদি তালা হয় সেই তালা খোলার চাবি আমাদের এই হাতে থাকে কি?
আমরা কি সেই সঠিক চাবিটি পেয়েছি যা ঘোরাতে ঘোরাতে জীবনের তালাটি খুলে যায়!

বর্ষায় শাক পাতা তুলে আনা আমাদের জীবন
গরমে দরদর করে ঘেমে যাওয়া আমাদের জীবন
শরতের শিউলি দুব্বো ঘাস বড় জোর পদ্মকলি বেচা আমাদের জীবন
হেমন্তে ঝরা শালপাতা কুড়ানো আমাদের জীবন
শীতে গাঁদা ফুল দোপাটি ফুল খাগের কলম বেচা আমাদের জীবন
বসন্তের মহুয়া বেচা আমাদের জীবন

বিড়ি টানা আমাদের জীবন।
মুখে আগুন টেনে নিলেও ধোঁয়া উড়ে যায়…
আমৃত্যু হাত পেতে যাওয়া আমাদের জীবন
কিন্তু এই জীবনের কথা কালিদা বা কালীদা তোমাকে আমরা বলি কেন এখনো আমি জানি না।

কালো থেকে কালি এসেছে কিনা জানি না
তুমি কাল নিয়ন্ত্রণ করো কিনা সে কি আমি জানি?

জীবন যেমনই যাক, কালিদা অথবা কালীদা আমি তোমাকে খুঁজে চলি…