অবতক খবর,২৮ জুনঃ গতকাল রাত্রে অ্যাকোরিয়ামে হাত কেটে যায় নয়ন গোয়ালার। মাঝেরচর 7 নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা নয়ন। নয়নের হাত কেটে গেলে তাকে JNM হসপিটালে নিয়ে আসা হয়। সেখানে আসলে তাকে প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয় এবং হাতে ব্যান্ডেজ করে দেওয়া হয়। তাতে রক্তক্ষরণ বন্ধ হয়েছিল বলে দাবি পরিবার সূত্রে।

অভিযোগ ওঠে রাত্রিবেলায় এক জুনিয়র ডাক্তার এসে তার হাতের ব্যান্ডেজ খুলে দেয় এবং তার রক্তক্ষরণ হতে থাকে। পরিবারের সূত্রে খবর, ডাক্তার মদ্যপ অবস্থায় এসে সেই ব্যান্ডেজ খুলে দেন এবং তারপরেই আইসিইউতে নিয়ে গেলে সকালবেলায় মৃত বলে ঘোষণা করা হয় তাকে। এই নিয়ে সকাল থেকে চরম উত্তেজনা দেখা যায় JNM হসপিটাল চত্বরে।

উত্তেজনা প্রশমন করতে কল্যাণী থানার বিশাল পুলিশবাহিনী ছিল। পরিবারের দাবি ডাক্তারের কঠোর শাস্তির। নয়ন গোয়ালার দেহ কল্যাণী মর্গে পোস্টমর্টেম এর জন্য পাঠানো হয়েছে।