অবতক খবর,৫ জুলাইঃ মিঠুন চক্রবর্তী সাংবাদিকদের মুখোমুখি হলেন কলকাতার মুরলীধর সেন এলাকার বিজেপি সদর দপ্তর এর অফিসে, এদিন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মিঠুন চক্রবর্তী জানান”আমি রাজনীতি করি না মানুষ নীতি করি” ।

“রাজনীতি নয় আমি মানুষ-নীতি করি”, কামব্যাকেই হিট ‘মহাগুরু’

বিক্রম দাস: বঙ্গ বিজেপিতে মিঠুন চক্রবর্তীর ‘কামব্যাক’। আর রাজনীতির ময়দানে ফিরেই সুপারহিট ‘মহাগুরু’। সোমবার রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করলেন। এরপর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে পুরোদমে গেরুয়া শিবিরের হয়ে কাজের ইঙ্গিত দিলেন তিনি।

মিঠুন চক্রবর্তী বলেন, “আমি রাজনীতি করিনা, আমি মানুষ-নীতি করি। বাংলার মানুষের জন্য কাজ করতে চাই এবং সেটা করবও।” রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে কী বিষয়ে আলোচনা হল? প্রকাশ্যে সেই বিষয়ে মুখ খোলেননি মিঠুন চক্রবর্তী । তিনি শুধু জানান, রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদার তাঁকে কিছু কাজ দিয়েছেন। তিনি সেটা করবেন।

মিঠুন চক্রবর্তী বলেন, “আমি রাজনীতি করিনা, আমি মানুষ-নীতি করি। বাংলার মানুষের জন্য কাজ করতে চাই এবং সেটা করবও।” রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে কী বিষয়ে আলোচনা হল? প্রকাশ্যে সেই বিষয়ে মুখ খোলেননি মিঠুন চক্রবর্তী । তিনি শুধু জানান, রাজ্য বিজেপি সভাপতি সুকান্ত মজুমদার তাঁকে কিছু কাজ দিয়েছেন। তিনি সেটা করবেন।

সোমবার রাজ্য বিজেপি দফতরে যান মিঠুন চক্রবর্তী । এরপর সুকান্ত মজুমদার, রাহুল সিনহা, রুদ্রনীল ঘোষের মতো গেরুয়া শিবিরের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। অসুস্থতা কাটিয়ে ‘মহাগুরু’র কামব্যাকে উজ্জীবিত রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব।

২০২১ সালের বিধানসভা ভোটের আগে বিজেপিতে যোগ দেন মিঠুন চক্রবর্তী । প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর  ব্রিগেডের সভায় হাতে পদ্ম পতাকা তুলে নেন ‘মহাগুরু’। বিজেপিকে ভোট দেওয়ার জন্য বাংলার মানুষকে আহ্বান জানান তিনি। এরপর গোটা বাংলায় বিজেপির হয়ে প্রচার করেন মিঠুন চক্রবর্তী । “মারব এখানে লাশ পড়বে শ্মশানে”, “আমি জলঢোড়াও নই, বেলোবোড়াও নই। আমি জাত গোখরো। এক ছোবলে ছবি।”, বিভিন্ন সভায় তাঁর বিখ্যাত সমস্ত ডায়লগও বলেন এই প্রখ্যাত অভিনেতা। তবে ফলাফল বেরলে দেখা যায়, বিজেপির বাংলায় সরকার গড়ার স্বপ্ন বিফলে গিয়েছে। এরপর থেকে বঙ্গ রাজনীতি এবং বিজেপিতে মিঠুন চক্রবর্তীকে তেমন একটা দেখা যায়নি। তবে তাঁর ফের সক্রিয় হওয়ার জল্পনা উস্কে দিলেন সুকান্ত মজুমদার ।