অবতক খবর,২৯ ডিসেম্বর: বাঁশদ্রোণীতে (Bansdroni) পেটে ছুরি মেরে আত্মঘাতী দ্বাদশ শ্রেনীর ছাত্র। পারিবারিক বিবাদের জেরে হতাশা ও বিরক্তিতে আত্মঘাতী বলে মনে করা হচ্ছে।

লকডাউনে কাজ হারান আত্মঘাতী ছাত্রের বাবা সুশোভন দেবনাথ। আয়ার কাজ করে কোনোক্রমে সংসার চালাচ্ছিলেন মা। চরম অনটনের ফলেই পরিবারে লেগে থাকতো নিত্য অশান্তি। এরই প্রভাব পরে ওই ছাত্র রবীন দেবনাথের উপরে।

এই সমস্যার ফলে ক্ষতিগ্রস্থ হয় রবীনের পড়াশুনা। বারবার পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয় রবীন। এরপরেই স্কুল থেকে বহিষ্কার করা হয় তাকে। চরম মানসিক অবসাদ এবং হতাশার মাঝেই প্রাইভেটে পরীক্ষা দিয়ে পাশ করার চেষ্টা করছিল ২৩ বছরের ওই তরুন।

এর মাঝেই মঙ্গলবার রাতে আর্থিক সমস্যা নিয়ে বাবা এবং মায়ের মধ্যে অশান্তি শুরু হয়। এই অবস্থায় নিজের মানসিক স্থিতি ঠিক রাখতে না পেরে, রাতে রান্নাঘরের সব্জি কাটার ছুরি দিয়ে নিজের পেটে উপর্যুপরি আঘাত করে রবীন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় এস এস কে এম হাসপাতালে (SSKM Hospital) নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে । প্রাথমিক তদন্তে পুলিসের অনুমান চূড়ান্ত হতাশা থেকেই এই কাজ করেছে ওই তরুন।