আদালতের নির্দেশকে অমান্য করে জমি দখল

অবতক খবর,২৭ নভেম্বর,মালদা:সানু ইসলাম: আদালতের নির্দেশকে অমান্য করে বাড়ির রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ উঠল সিপিআইএম এর গ্রাম পঞ্চায়াতের সদস্যের লোকদের বিরূদ্ধে।

ঘটনাটি ঘটেছে মালদা জেলার চাঁচল-১ নং ব্লকের ওলিহন্ডা গ্রাম পঞ্চায়েতের দেবীগঞ্জ গ্রামে।ঘটনাকে ঘিরে রীতিমত চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকার জুড়ে।

অভিযোগকারী রমেশচন্দ্র সাহা ছেলে পিন্টু সাহা বলেন ,অক্টোবর মাসের ১০ তারিখে আমার কাকা বৈদ্যনাথ সাহা ১৪ লক্ষ টাকার বিনিময়ে গ্রামেরই দেবেন দেশি,সিধিনাথ দেশি,উমেশ সাহা,মুস্তাক আলম ও নজিমুল হকের কাছে জমিটি বিক্রি করে।পারিবারিক বল্টন নামা অনুযায়ী বৈদ্যনাথ সাহা মূল জায়গায় হলো মধ্যঅংশের পূর্ব দিকে কিন্তু জমি ক্রেতারা বৈদ্যনাথ সাহা মূল জায়গা দখল না করে অন্য জায়গা দখল করে বলে অভিযোগ।তারপর অক্টোবর মাসের ১১ তারিখে আমার বাবা রমেশ চন্দ্র সাহা এবং কাকুর দুই ছেলে উত্তর কুমার সাহা,বাপন সাহা আদালতের দ্বারস্থ হয় এবং সেই মাসেরই ১২ তারিখে আদালতের নির্দেশ দেয় যে ,জায়গাটিতে কোন পক্ষই ভোগ দখল করতে পারবে না, যতক্ষণ পর্যন্ত আদালতের পক্ষ থেকে নতুন নির্দেশ আসে।পরবর্তীতে অক্টোবর মাসের ১৬ তারিখে বিক্রি হওয়া জমিটি আইন মেনে জমা ধরেন আমার বাবা রমেশ চন্দ্র সাহা এবং কাকুর দুই ছেলে উত্তর কুমার সাহা, সাহা,বাপন সাহা।

তবে সোমবার দিন সাত সকালে জমি ক্রেতা দেবেন দেশি,সিধিনাথ দেশি,উমেশ সাহা,মুস্তাক আলমেরা আদলতের নির্দেশকে অমান্য করে আমার কাকাতো ভাই উত্তর কুমার সাহা,বাপন সাহা বাড়ির মূল ফটকের কংক্রীটের রাস্তা ভেঙে বাঁশের বেরা দিয়ে জমি দখল করে গৃহবন্ধী করে।জমি দখল করতে সহযোগীতা করেন স্থানীয় সিপিআইএম এর পঞ্চায়েত সদস্যার স্বামী তথা জমি ক্রেতা নজিমুল হক বলে অভিযোগ।

জমি ক্রেতা উমেশ সাহা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বৈদ্যনাথ সাহা জমি বিক্রির জন্য গ্রাহকের খোঁজ করছিলেন।তারপর পাঁচজনে আমরা ওই জমিটি ১৪ লক্ষ টাকার বিনিময়ে ক্রয় করি।পরের দিন ওই জমি বাঁশের বেরা দিয়ে ঘিরে ফেলি।কিছু দিন পর জমির বন্টন বিষয় বৈদ্যনাথ সাহার দাদা রমেশচন্দ্র সাহা ও তার ভাইপো উত্তর কুমার সাহা,বাপন সাহা আদালতের দ্বারস্থ হয়।পিন্টু সাহা যে অভিযোগটি করছেন,তা ভিত্তিহীন।

ঘটনার খবর পেয়ে ছুটে যায় চাঁচল থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী এবং আদালতের নির্দেশকে অমান্য করে যারা বাড়ির রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ উঠে,তারা পুলিশকে দেখে দৌড়ে এলাকার থেকে চম্পট দেয়।বাড়ির মূল ফটক বন্ধ করে দেওয়ায় গ্রামের উত্তেজিত জনতা বাঁশের বেরা ভেঙে দেয়।

এই ঘটনা নিয়ে ওলিহন্ডা গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমুল কংগ্রেসের সভাপতি ফিরোজ চৌধুরী বলেন, বাপন সাহা তৃণমুল কংগ্রেসের কর্মী,সিপিআইএম কিছু লোক জমির বিবাদ নিয়ে বাপনের বাড়ির মূল রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে,আদালতের নির্দশকে অমান্য করে এলাকায় জোটের লোকেরা সন্ত্রাস সৃষ্টি করছে।

সিপিআইএম লোকাল কমিটির সদস্য টিপু সুলতান বলেন এটা জমি সংক্রান্ত বিবাদ,এতে রাজনীতির কিছু নেই।আইন, আইনের পথে চলবে।